রোগমুক্তি ও রোগ প্রতিরোধসহ দৈনন্দিন স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রতিটি দেশই ওষুধসহ বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা সামগ্রী প্রস্তুত করে থাকে। এরপরও স্বাস্থ্যখাতের চাহিদা মেটাতে গুরুত্বপূর্ণ এসব পণ্য আমদানিও করতে হয়। ওষুধসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম আমদানিতে গত তিন বছর ধরেই শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। গত এপ্রিলে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। আর এসব পণ্যের মোট রপ্তানির ৪৫ ভাগই আমদানি করেছে মাত্র ৫টি দেশ। ডব্লিউটিও’র ওই প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৯ সালে বিশ্বে মোট ১ ট্রিলিয়ন (১০১১.৩ বিলিয়ন) ডলারের বেশি মূল্যের চিকিৎসা সামগ্রীর দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৫৬ ভাগই ওষুধ। চিকিৎসা যন্ত্রপাতি ১৪ ভাগ, চিকিৎসা কাজে দরকারি আনুসঙ্গিক পণ্য ১৭ ভাগ আর ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী রয়েছে ১৩ ভাগ।

চিকিৎসা সামগ্রী আমদানিতে শীর্ষ ১০টি দেশ হল যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, চীন, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ড, জাপান, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ইতালি ও সুইজারল্যান্ড। দেশভিত্তিক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০১৯ সালে মোট চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একাই করেছে ১৯ শতাংশ। গেল বছর দেশটি মোট ১৯৩.১ বিলিয়ন বা ১৯ হাজার ৩১০ কোট ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করেছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১৬ লাখ ৪১ হাজার ৩৫০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৫৬ ভাগই ওষুধ। অর্থাৎ চলতি অর্থবছরের জন্য বাংলাদেশ যে বাজেট (৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকা) ঘোষণা করেছে, ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র এর ৩ গুন বেশি বাজেটের চিকিৎসা সামগ্রীই আমদানি করেছে দেশটির নাগরিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায়।

এরপরের অবস্থানে রয়েছে বিশ্বের আরেক ক্ষমতাধর রাষ্ট্র জার্মানি। ওই বছর জার্মানি ৮৬.৭ বিলিয়ন বা ৮ হাজার ৬৭০ কোটি ডলার মূল্যের চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করেছে। যা এসব পণ্য আমদানি-রপ্তানির ৯ ভাগ। এর মধ্যে ৫৭ শতাংশই ওষুধ। গত বছর চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির ৬ ভাগ করেছে চীন। দেশটি ৬৫ বিলিয়ন বা ৬ হাজার ৫শ’ কোটি ডলার মূল্যের এসব পণ্য আমদানি করেছে। এর মধ্যে ৪৬ ভাগই রয়েছে ওষুধ। বেলজিয়ামও করেছে বিশ্ব আমদানির ৬ ভাগ। দেশটি ৫ হাজার ৬৬০ কোটি ডলারের এসব পণ্য আমদানি করেছে। যার ৭৫ ভাগই ওষুধ। মোটি চিকিৎসা সামগ্রীর ৫ ভাগ আমদানি করে ৫ম স্থানে রয়েছে নেদারল্যান্ড। দেশটি ৫ হাজার ২৭০ কোটি ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করেছে; যার মধ্যে ৫৫ ভাগই ওষুধ। হিসাব বলছে, ২০১৯ সালে বিশ্বে চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির ৪৫ ভাগ করেছে এই চারটি দেশ।

জাপান করেছে আমদানি ৪ হাজার ৪৮০ কোটি ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী। এর ৫৬ ভাগই ওষুধ। ৪ হাজার ১১০ কোটি ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করেছে যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে ওষুধ রয়েছে ৫৬ ভাগ। ফ্রান্স করেছে ৪ হাজার ৫০ কোটি ডলার মূল্যের চিকিৎসা সামগ্রী। দেশটি মোট চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির মধ্যে ৫৩ শতাংশ ওষুধ। ৯ম স্থানে রয়েছে ইতালি। ২০১৯ সালে দেশটির আমদানি করা চিকিৎসা সামগ্রীর মধ্যে ৬৬ ভাগই ওষুধ। গেল বছর ৩ হাজার ৭১০ কোটি ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করেছে ইতালি। শীর্ষ চিকিৎসা সামগ্রী আমদানিকারক দেশের তালিকায় ১০ স্থানে রয়েছে সুইজারল্যান্ড। দেশটি মোট ৩ হাজার ৬৯০ কোটি ডলারের চিকিৎসা সামগ্রী করেছে। যা দেশটির মোট পণ্য আমদানির ১৩ ভাগ। আর এসব চিকিৎসা সামগ্রীর মধ্যে ৮০ শতাংশই ওষুধ।