মুক্তি ডেইলি ডেস্ক: যেকোনো মুহূর্তে হয়ে যেতে পারে এক বড়োসড়ো অঘটন। যুদ্ধের দামামা বেজে উঠতে পারে পাহাড়ের চূড়ায়। যেখানে সাদা বরফে ঢেকে আছে শান্তির ললিত বাণী। উত্তপ্ত হয়ে রক্তাক্ত হতে পারে সীমান্ত।

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে চুমার এলাকা দিয়ে ভারতের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় ঢুকে আসার চেষ্টা করেছিল লাল ফৌজ। তাদের চেপুজি ক্যাম্প থেকে কয়েকটি আর্মড ভেহিকলকে বের হতে দেখেই সতর্ক হয়ে যায় ভারতীয় বাহিনী। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সেনার সংখ্যা বাড়িয়ে দেওয়া হয়। অ্যদিকে, চুসুলের কাছে ভারতের ট্যাঙ্ক রেজিমেন্টও প্রস্তুত হয়ে যায়।

আর এসবের মধ্যে সতর্কতামূলক ভাবে ভারত সরকার বারবার করে পদক্ষেপ নিয়েছে তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সবসময় তৈরি হয়ে রয়েছে। তেমনটাই খবর। নিশানা স্থির করে বসে টি-৯০ যুদ্ধট্যাঙ্ক। এইসব দেখেই ফের নিজেদের ক্যাম্পে ফিরে যায় চিনের বাহিনী।

মুক্তি ডেইলি ডেস্ক: যেকোনো মুহূর্তে হয়ে যেতে পারে এক বড়োসড়ো অঘটন। যুদ্ধের দামামা বেজে উঠতে পারে পাহাড়ের চূড়ায়। যেখানে সাদা বরফে ঢেকে আছে শান্তির ললিত বাণী। উত্তপ্ত হয়ে রক্তাক্ত হতে পারে সীমান্ত।

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে চুমার এলাকা দিয়ে ভারতের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় ঢুকে আসার চেষ্টা করেছিল লাল ফৌজ। তাদের চেপুজি ক্যাম্প থেকে কয়েকটি আর্মড ভেহিকলকে বের হতে দেখেই সতর্ক হয়ে যায় ভারতীয় বাহিনী। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সেনার সংখ্যা বাড়িয়ে দেওয়া হয়। অ্যদিকে, চুসুলের কাছে ভারতের ট্যাঙ্ক রেজিমেন্টও প্রস্তুত হয়ে যায়। আর এসবের মধ্যে সতর্কতামূলক ভাবে ভারত সরকার বারবার করে পদক্ষেপ নিয়েছে তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সবসময় তৈরি হয়ে রয়েছে। তেমনটাই খবর। নিশানা স্থির করে বসে টি-৯০ যুদ্ধট্যাঙ্ক। এইসব দেখেই ফের নিজেদের ক্যাম্পে ফিরে যায় চিনের বাহিনী।