নিজস্ব প্রতিবেদন- কখনও তাদের রবিনা টন্ডনকে চাই। কখনো মাধুরি দিক্ষীতকে। কখনও বিরাট কোহলি। পাকিস্তানের চাহিদার শেষ নেই। তাদের নিজেদের দেশে বহু তারকারা রয়েছেন। কিন্তু তাঁদের কদর নেই। পাকিস্তানিদের সব সময় নজর যেন ভারতের দিকে। ভারতীয় তারকাদের তারা পাকিস্তানে দেখতে চান। ১৬ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ারে দাড়ি টেনেছেন এম এস ধোনি। আর এবার পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের আক্ষেপ, কেন ধোনির মতো একজন তাঁদের দলে নেই! ধোনিকে চাইছে পাকিস্তান। অবসরপ্রাপ্ত ধোনির জন্য পাকিস্তানি ক্রিকেটাররাও আফসোস করছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধোনির জায়গায় শূন্যস্থান তৈরি হল। মানছেন তাঁরা।

পাকিস্তানি ক্রিকেটার কামরান আকমল বলেছেন, ”ধোনি টিমের জন্য সব কিছু করতে পারেন। একটা গোটা টিম নিজের সঙ্গে নিয়ে চলত। অনেক ক্যাপ্টেন আছে যারা শুধু নিজেদের জায়গা বাঁচাতে চায়। দল হারল কি জিতল তা নিয়ে ক্যাপ্টেন চিন্তায় থাকে না। কিন্তু ধোনি অনেক বড় ক্যাপ্টেন। ও নিজের জায়গা বাঁচানোর চিন্তা কোনওদিন করেনি। ধোনি গোটা টিম তৈরি করেছিল। তার উপর ওর নিজের পারফরম্যান্স ছিল অসাধারণ। আপনারাই দেখুন যে ধোনি কেমনভাবে নিজের দলের ক্রিকেটারদের বিশ্বমানের করেছেন। ধোনি সব সময় নিজের দলের জন্য, দেশের জন্য ভাল পারফর্ম করতে চাইতেন। আর তাই দলকে এক নম্বরে তুলতে পেরেছিলেন তিনি।”

আকমল আরও বলেন, ”আমি ইনজামাম উল হক ও ইউনিস খানকে দেখেছিলাম। তাঁরাও এরকম ক্যাপ্টেন্সি করতেন। নিজেদের জায়গা বাঁচানোর জন্য খেলতেন না। ওঁরাও গোটা টিম সঙ্গে নিয়ে চলতেন। ধোনি দেশের জন্য খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। আর তিনি নিজেকে প্রমাণ করেছেন। পাকিস্তান ধোনির মতো একজন ক্যাপ্টেনকে পেল না। এটাই আফসোস। আমরা ধোনিকে পেলে অনেক দূর পর্যন্ত এগোতে পারতাম। ধোনির মতো মানসিকতা আমাদের দেশের এখনকার অধিনায়কদের মধ্যে নেই। ধোনির বিদায় সচিন তেন্ডুলকরের মতো হওয়া উচিত ছিল। ধোনি একেবারে ক্যাপ্টেন কুল-এর মতো চুপচাপ অবসর নিয়ে ফেলল।”

মহেন্দ্র সিং ধোনির শ্রেষ্ঠত্ব এখানেই। প্রিয়জনদের কাছ থেকে তিনি জন্মদিনের শুভেচ্ছা তো পানই, তাঁকে শুভেচ্ছা কিংবা শ্রদ্ধা জানাতে এতটুকু কার্পণ্য করে না তাঁর ‘শত্রু’রাও। নিজের ৩৯তম জন্মদিনের ধোনিকে ভালোবাসা জানালেন ‘চিরশত্রু’ পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও ফাস্ট বোলার ওয়াকার ইউনিস। ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তান চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। চিরশত্রু বলাটাও বাড়াবাড়ি হয় না। আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে এই দুই দেশ দুই মেরুতে অবস্থিত। ভারত কোনো কিছু সাদা বললে পাকিস্তানের সেটি কালো বলা চাই-ই। কিন্তু ধোনির ক্ষেত্রে যেন দুই দেশ মিশে যায় একই ধারায়। ওয়াকার ধোনির বিপক্ষে খেলেননি। কিন্তু পাকিস্তানের কোচ কিংবা পাকিস্তান দলের ব্যবস্থাপনার অংশ হিসেবে দেখেছেন দুর্দান্ত ধোনিকে। সেই ধোনি কেমন সেটিই ওয়াকার জানিয়েছেন এক অনলাইন আড্ডায়।

ধোনির শ্রেষ্ঠত্ব বর্ণনা করতে যেন ভাষা হারিয়ে ফেলেছেন পাকিস্তানের বোলিং কিংবদন্তি, ‘কী দুর্দান্ত, কী অসাধারণ এক ক্রিকেটার ধোনি! সে যেভাবে ভারতে নেতৃত্ব দিয়েছে, সেটি আসলে ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। সে দারুণ একজন নেতা, যে ক্রিকেটটা খুব ভালো বোঝে।’ওয়াকারের কাছে দারুণ লাগে ধোনির উঠে আসার গল্প, ‘ভারতের একটি ছোট্ট শহর থেকে উঠে এসে সে যে উচ্চতায় নিজেকে নিয়ে গেছে, সেটা অবিশ্বাস্য। সে ভারতের মতো একটি বড় দেশ আর ক্রিকেটশক্তিকে নেতৃত্ব দিয়েছে। তাঁর এই অর্জন একটা কীর্তিই। মানুষ হিসেবেও দুর্দান্ত।’