খাবারের রুটি ঠিকমতো তৈরি হয়নি! শুধুমাত্র এই তুচ্ছ কারণে নির্মমভাবে অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল -শাশুড়ির বিরুদ্ধে! সোমবার( ১৩ জুলাই) বিকেলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মধ্যমগ্রামের চণ্ডীগড় রোহন্ডা পঞ্চায়েতের বিড়পুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

মৃত তরুণীর পরিবার জানিয়েছেন, তাদের মেয়ে পারভিনা খাতুন মৃত্যুকালীন জবানবন্দিতে জানিয়েছে, রুটি তৈরি করা নিয়ে শাশুড়ি তাঁকে কটূক্তি করে ও গায়ে তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। তখন অভিযুক্ত স্বামী ও শ্বশুরের পরিবারের সবাই বাইরেই ছিল, তবু তারা বাঁচাতে আসেনি ২৪ বছরের তরুণীকে। শুধু তাই নয়, বিষয়টি কেউ যাতে জানতে না পারে তাই দীর্ঘক্ষণ ঘরের মধ্যেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় ফেলে রাখা হয় দগ্ধ পারভিনাকে। ঘরের ভিতরেই যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকেন তিনি। সন্ধ্যার পরে এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পেরে তরুণীর বাপের বাড়িতে খবর দেয়।

এমন সময়ে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূকে পশ্চিমবঙ্গের বারাসাত জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায় শ্বশুর-শাশুড়ি। সেখানেই সোমবার রাত দুটো পনেরো নাগাদ মারা যায় পারভিনা ও তার গর্ভের ৮ মাসের সন্তান। মর্মান্তিক এই ঘটনায় মৃতার পরিবারের তরফে মধ্যমগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় শ্বশুর-শাশুড়ির বিরুদ্ধে।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ জানিয়েছে, বারাসত জেলা হাসপাতালে পারভিনাকে ভর্তি করার পরে অভিযুক্ত শ্বশুর-শাশুড়ি হাসপাতাল থেকে পালানোর চেষ্টা করে। সেই সময়ে মৃতা তরুণীর বাপের বাড়ির লোকেরা শ্বশুর-শাশুড়িকে ধরে মধ্যমগ্রাম থানার পুলিশের হাতে তুলে দেয়। আপাতত তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে মধ্যমগ্রাম থানা।