বগুড়া শহরের বড়গোলা টিনপট্টি এলাকায় একটি পলিথিনের গুদামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে ১০ মেট্রিক টন বিক্রয়নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করা হয়েছে।

অভিযান–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দাবি, এই পলিথিনের বাজারমূল্য প্রায় ১০ লাখ টাকা। এ সময় বিক্রয়নিষিদ্ধ পলিথিন বাজারজাতকরণ ও বিক্রির দায়ে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ অনুযায়ী গুদাম মালিক মো. নুর ইসলামকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। বগুড়ার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাছিম রেজা এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন। উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের বগুড়ার সহকারী পরিচালক নাজমুল হোসাইনসহ অন্য কর্মকর্তারা।

অন্যদিকে জেলা প্রশাসনের জুডিশিয়াল মুন্সিখানার সহকারী কমিশনার সূত্রে জানা গেছে, সোমবার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমানা রিয়াজ ও পাপিয়া সুলতানার নেতৃত্বে দুটি ভ্রাম্যমাণ আদালত শহরের চারমাথা এলাকায় আকবরিয়া দইঘর, লাবানুন দইঘরসহ চারটি দইঘরে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ ছাড়া খাদ্যপণ্য বিক্রি করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ অনুযায়ী চারটি প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেন। জেলা প্রশাসনের জুডিশিয়াল মুন্সিখানা সূত্রে জানা গেছে, সোমবার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, জি এম রাশেদুল ইসলাম ও তাসনিমুজ্জামানের নেতৃত্বে আরও তিনটি ভ্রাম্যমাণ আদালতসহ ছয়টি আদালতে আটটি মামলা করা হয়। এ সময় ১ লাখ ২২ হাজার ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড ও তা আদায় করা হয়।

অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক দেবাশীষ রায় ও পৌরসভার স্বাস্থ্য পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহ আলী।